কুড়িগ্রাম যাত্রাপুরে ৫ মাস১৮ দিন পর চেয়ারম্যান হলেন আব্দুল গফুর

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নে ২৮ নভেম্বর ২০২১ সালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার ৫ মাস ১৮দিন অতিবাহিত হওয়ার পর চেয়ারম্যান পদের ফলাফলের গেজেট ঘোষণা করা হয় আজ ১৬ মে,সোমবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয় কর্তৃক রিটার্নিং অফিসার ডাঃ মোঃ হাবিবুর রহমান কর্তৃক উক্ত গেজেট প্রকাশিত হয়। গেজেট প্রকাশের পর তার চেয়ারম্যান পদে আর কোন বাঁধা রইলো না।

কুড়িগ্রামে তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৯নং যাত্রাপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ ও ফলাফল অনুষ্ঠিত হয় ২৮ নভেম্বর রবিবার । সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ বিকেল ৪ টায় শেষ হয়। সম্মিলিত ফলাফলের ভিত্তিতে বেসরকারিভাবে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্যদের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হলেও কুড়িগ্রাম সদরের অন্তর্গত ৯নং যাত্রাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী ফলাফল আটকে যায়।

৯ নং যাত্রাপুর ইউনিয়নের চর ভগবতিপুর এলাকার ঝুনকার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ফলাফল নির্বাচনের পরের দিন সোমবার দুপুর পর্যন্তও ঘোষণা করা হয়নি।

কারণ হিসেবে স্থানীয় বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে জানা যায়,যাত্রাপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের উক্ত কেন্দ্রে নির্বাচন পরবর্তী সময়ে ব্যালট বাক্স ছিনতাই, লাঠিসোটা নিয়ে মারামারি ও সংঘর্ষের ঘটনায় প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের কয়েকজন আহত হওয়ায় আইনি জটিলতায় উক্ত ইউনিয়নের ফলাফল স্থগিত হয়ে যায়। অবশেষে অনেক প্রতিক্ষার পর ২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার ৯নং যাত্রাপুর ইউনিয়নের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ্ব আঃ গফুর নির্বাচিত হন। তিনি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন না পাওয়ায় বিদ্রোহী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে অংশগ্রহণ করেন জনগনের সমর্থনে। এরপর উক্ত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ইউনিয়ন পরিষদের সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে পুনঃ নির্বাচনের আদেশ দেয়া হয়, সে আদেশের বিরুদ্ধে আব্দুল গফুর পুনরায় উচ্চ আদালতে রিট করেন, তার পরিপ্রেক্ষিতে ঐ নির্বাচন স্থগিত করা হয়। অবশেষে গেজেট প্রকাশ হওয়ায় পর বিষয়টির নিষ্পত্তি হলো। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর বলেন, আমি সন্তুষ্ট এখন আর কোন সমস্যা রইল না।

এ বিষয়ে জানতে চেয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার জাহাঙ্গীর আলম রাকিব কে কয়েকবার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তিনি অভ্যন্তরীণ নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে ব্যস্ত আছেন বলে তার এক সহকারি জানান।

গেজেট ঘোষনার কথা ও গেজেট দেখে ৯নং যাত্রাপুর ইউনিয়ন বাসীর মধ্যে উৎসবের হালকা আমেজ দেখা যায়,অনেক প্রতিপক্ষার পর এলাকাসী একজন গেজেট প্রকাশিত সৎ যোগ্য চেয়ারম্যান পেলেন বলে অনেকে জানান।

Facebook Comments