পাঁচ বছরের মেয়াদ কেউই শেষ করতে পারেননি

ফল ক্রিকেট জীবনের পর ১৯৯৬ সাল থেকে সেই ইমরান খান পুরোদুস্তর রাজনীতিবিদ। ২০১৮ সালে নির্বাচিত হন দেশটির প্রদানমন্ত্রী। কিন্তু দুর্ভাগ্য তিনি তাঁর মেয়াদ পুরো করতে পারলেন না। তাঁর প্রধানমন্ত্রীত্বের সাড়ে তিন বছরের মাথায় গতকাল দেশটির প্রেসিডেন্ট পাকিস্তানের পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন। তবে শুধু ইমরান খানই নন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পাকিস্তান সৃষ্টির পর কোনো প্রদানমন্ত্রীই তাঁর মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। এ ঝলকে দেখে নেওয়া যাক বিষয়টি-

লিয়াকত আলী খান : স্বাধীন পাকিস্তানের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হন লিয়াকত আলী খান। ১৯৪৭ সালের ১৪ আগস্ট অর্থাৎ পাকিস্তানের স্বাধীনতার দিন তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বভার নেন। কিন্তু ১৯৫১ সালের ১৬ অক্টোবর এক জনসভায় বক্তৃতা দেওয়ার সময় আঁততায়ীর গুলিতে প্রাণ হারান তিনি। মোট চার বছর ৬৩ দিন তিনি ক্ষমতায় ছিলেন।

খাজা নাজিমুদ্দিন : তিনি ১৯৫১ সালের ১৭ অক্টোবর থেকে ১৯৫৩ সালের ১৭ অগস্ট পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর পদে বহাল ছিলেন। তিনি মোট এক বছর ১৮২ দিন ক্ষমতায় ছিলেন।

মহম্মদ আলী বোগরা : এর পর প্রধানমন্ত্রী হন মহম্মদ আলী বোগরা। তিনি দুই বছর ১১৭ দিন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাসন করেন। কিন্তু গভর্নর ইসকান্দার মির্জার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বোগরার সমস্যা শুরু হয়। এর পরই তাকে ইস্তফা দিতে বাধ্য করেন ইসকান্দার।

চৌধুরী মহম্মদ আলী : পাকিস্তানের চতুর্থ প্রধানমন্ত্রী। তিনি এক বছরের কিছু বেশি সময় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী : তিনি ১৯৫৬ থেকে শুরু করে এক বছর ৩৫ দিন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তবে গভর্নর ইসকান্দারের চাপের মুখে পড়ে তিনিও গদি ছাড়তে বাধ্য হন।

ইব্রাহিম ইসমাইল চুন্দিরগার : মাত্র দুই মাস প্রধানমন্ত্রী ছিলেন চুন্দিরগার।

ফিরোজ খান নুন : তাঁর শাসনকালের সময় ছিল ২৯৫ দিন। তাঁকেও গদিচ্যুত করেন ইসকান্দার মির্জা।

নুরুল আমিন : তিনিই পাকিস্তানের ইতিহাসে সব থেকে স্বল্পমেয়াদি প্রধানমন্ত্রী। মাত্র ১৩ দিন।

জুলফিকার আলী ভুট্টো : নুরুলের পর ক্ষমতায় আসেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির নেতা জুলফিকার আলী ভুট্টো। ১৯৭৩ সাল থেকে শুরু করে তিনি তিন বছর ৩২৫ দিন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

বেনজির ভুট্টো : প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতায় আসেন জুলফিকারের মেয়ে বেনজির ভুট্টো। তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রায় দুই বছর ক্ষমতায় ছিলেন। তিনি দুই দফায় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন কিন্তু কোনো বারই মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি।

নওয়াজ শরিফ : ১৯৯০ সালে প্রধানমন্ত্রী হন নওয়াজ শরিফ। তিনি মোট তিনবার প্রধানমন্ত্রী হন। কিন্তু তিনিও কোনোবারই মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি।

জাফারুল্লাহ খান জামিলি : দুই বছরের শাসনকালের পর হঠাৎই নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি।

চৌধরী সুজাত হোসেন : তাঁর মেয়াদ ছিল মাত্র ৫৭ দিন।

শওকত আজিজ : তিনি তিন বছর ক্ষমতায় থাকার পর নিজে থেকেই সরে যান।

ইউসুফ রাজা গিলানি : তিনি মোট চার বছর ৮৬ দিন ক্ষমতায় ছিলেন।

রাজা পারভেজ আশরাফ : তিনি ২৭৫ দিন ক্ষমতায় ছিলেন।

শাহিদ খকন আব্বাসি : ৩০৩ দিন ক্ষমতায় ছিলেন।

ইমরান খান : ২০১৮ সালের নির্বাচনে জিতে প্রধানমন্ত্রীর পদে বসেন ইমরান খান। পাকিস্তানের ধারা বজায় রেখে ইমরানও মেয়াদ শেষ করতে পারলেন না।

Facebook Comments