অমরত্বের পথে সাকিব আল হাসান

0
28
অমরত্বের পথে সাকিব আল হাসান। শিরোনাম দেখে অনেকেই অবাক হতে পারেন না হওয়ারও কোন কারণে নেই। বাংলাদেশি কোন ক্রিকেটার অমরত্ব লাভ করার মত কীর্তি গড়বেন তাদের নাক সিটকানো লোকের অভাব হবার কথা নয়। তবে বাস্তবতা হচ্ছে সাকিব আল হাসান সে পথেই হাটছেন। কেন তিনি অমরত্বের পথে আছে সে বিষয়েই কথা বলবো আজকের পোস্টে।
সাকিব আল হাসানকে আপনি সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার হিসেবে নেই মেনে নিতে পারেন কিন্তু একজন অলরাউন্ডার হিসেবে তার যে অর্জন তার যে কীর্তি তা কি আগামী ১০০ বছরেও ভাঙা সম্ভব? কেউ কি ভাঙতে পারবে? ১৫০ বছরের ক্রিকেট ইতিহাসে আর কারও ১২ হাজার রান আর ৬০০ উইকেটেই নাই সেখানে তিনি এরই মধ্যে ১৪ হাজার রান ও ৬৭৪ উইকেট নিয়ে ফেলেছেন। অথচ সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার নাম আসলেই সবার আগে চলে আসে স্যার ইয়ান বোথামের নাম । যার ঝুলিতে আছে কেবল ৭০০০ রান আর ৫২৮ টি উইকেট! স্পিনার বলেই কি সাকিবকে বোথাম, ইমরান, হ্যাডলি, কপিল দেববের চেয়ে পেছনে রাখা হয়? নাকি ম্যাজর কোন টুর্নামেন্ট না জেতার কারণে? কারণ যেটাই হোক ক্রিকেট যদি রেকর্ড পরিসংখ্যানের খেলা আর সেখানে যদি অলরাউন্ডার ইস্যুতে কথা হয় তাহলে সাকিব আল হসানের নামটা অবধারিত ভাবেই চলে আসবে। একসাথে ৩ ফরম্যাটে দীর্ঘদিন বিশ্বের শীর্ষ অলরাউন্ডার থাকার রেকর্ডই যেখানে আর কারও নাই সেখানে সাকিবের এই কীর্তিও ১০০ সপ্তাহেরও বেশি সময়। আর ওয়ানডেতে শীর্ষ আলরাউন্ডার ছিলেন ১০ বছরেরও অধিক সময়। এই রেকর্ডগুলো ভাঙা কি সহজ হবে?
সাকিব এখনও যেরকম ফিট তাতে আরও ৩/৪ বছর ভালোভাবেই খেলা চালিয়ে যেতে পারবেন। ততদিনে তার নামের পাশে নিশ্চিতভাবেই ১৬ হাজার রান আর ৮০০ উইকেট লেখা থাকবে! অথচ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ হাজার রান আর ৬০০ উইকেটের ডাবলসই আর কারও নাই। ইন্ডিয়ানরা রবি জাদেজাকে সাকিবের মানের ভাবতে চায় অথচ তার নামের পাশে কেবল ৫৫০০ রান আর ৫০০ উইকেট! ৫/৬ বছর আগে শেন ওয়াটসনকে সাকিব আল হাসানের প্রতিদ্বন্দী ভাবা হতো সেই শেন ওয়াটসনও ক্যারিয়ার শেষ করেছেন ১০ হাজার রান আর ২৮০+ উইকেট নিয়ে।
সাকিব আল হাসানের সবচেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দী জ্যাকি ক্যালিস । কিন্তু তার নামের পাশেও ৫৭৭ উইকেটের বেশি নাই। সবকিছু মিলিয়েই যেখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আগামী ১০০ বছরে কেউ ১২ হাজার রান আর ৬০০ উইকেটের ডাবলসই কেউ ভাঙতে পারে কিনা তা নিয়ে ক্রিকেট গবেষকদের মনে সংশয় সেখানে সাকিব যদি ১৬০০০ রান আর ৮০০ উইকেট নিয়ে থামেন এই রেকর্ড কে ভাঙবে? লারার ৪০০ রানের রেকর্ড, শচীনের ১০০ সেঞ্চুরির চেয়েও সাকিবের ১৬০০০ রান আর ৮০০ উইকেটের রেকর্ডকে তখন বেশি আরাধ্য মনে হতে পারে। যে কারণে সাকিব আল হাসানও তখন উঠে আসবেন সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের সংক্ষিপ্ত তালিকায়। একজন বাংলাদেশি হিসেবে গর্বিত হবার মতই। গৌরবের যে রেকর্ড কেবলই আর্জেন্টিনার
বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তানের মধ্যকার টি-২০ সিরিজ শুরুর আগে রশিদ খানের মত মহাতারকা যেভাবে সাকিবকে কুর্ণিশ করছিলো তাতে আর বোঝার বাকি থাকার কথা না কত বড় তারকা বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান।
আপনার মন্তব্য