কাবিল সাদির নতুন কবিতা ‘কবির মৃত্যু’

কবির মৃত্যু

কাবিল সাদি

এখন আর আমি লিখি নারে ভাই
ছাড়িয়া দিয়াছি সব
দিনে দিনে আমি কোথায় হারাই
নেই কোনো কলরব।
ঐ নীলাকাশ ভাঙিয়া পড়ুক
কি বা যায় তাতে আসে
জোনাকির ঝাক,ঝি ঝি পোকারা
একা একা রাত জাগে।
হাসনা হেনা, বকুল, চামেলি
শিউলি শেফালি ঝরে
শুকনো পাতারা অভিমানে চুপ
কি জানি কী মনে করে।
রোজ অভিমানে জলে ভিজে আখি
শিশির জরানো ঘাস
পাখিদের ডাকে আর ঘুম ভাঙে না
আজ কত দিন,কত মাস।
রাত জাগা সেই তারার মিতালী
সাজিতো আল্পনাতে
কত গেছে রাত মান অভিমানে
কবির কল্পনাতে।
ফেরারি সূর্য,রুপোলী জোসনা
কাল বৈশাখী ঝড়
সব যেন আজ ছাড়িয়া গিয়াছে
আমারে করেছে পর।
বৃষ্টিতে ভেজা পাখির বাসা
কাটে না মনেতে দাগ,
ভাবতে গেলেই কে যেন বলে
থাকগে ওসব থাক।
বিপ্লব আর বিদ্রোহে আজ
উঠে না মনেতে ঝড়
সব মেনে নিই,যত অনাচার
অবহেলা, অনাদর।
প্রিয়া হারা শোক,ভাঙে না তো বুক
নেশায় মজে না মন
কোথায় বুঝি হারিয়ে যেতে
চলিতেছে আয়োজন।
সুখ নেই মনে,শোক নেই প্রাণে
আমি যেন এক জড়
কেন,কীভাবে এমন হলো
কে বা দেবে উত্তর।
নির্বাক চোখে তাকিয়ে থাকি
আমার পৃথিবী কাদে
আগের মত হাসিতে কাঁদিতে
মনে বড় স্বাদ জাগে।
ছন্দ আসে না,মন যে বসে না
কবিতারা আজ চুপ
কাগজে কলমে হৃদয় হাসে না
কোথাও দিয়েছে ডুব।
আমার পৃথিবী ঘুমাইয়ায় পড়েছে
ক্লান্তির খরতাপে
কিসের অসুখ,অচেনা সে রুপ
অজানা কোন অভিশাপে।
কে কারে জাগাবে,সমুখে আগাবে
ছন্দেরা সব চুপ
নেই কবি মন,আগের মতন
কাদিয়া ভেজায় বুক।
ক্ষমা করো হে কবিতার প্রেম
প্রেয়সী পাঠক গন
যত ভুলত্রুটি কবিতার হয়ে
ক্ষমা চাই  কবি-মন।
জাগুক ধরা ফুল ও পাখিরা
কবিতার শ্বাস ভরে
দুহাত তুলিয়া প্রার্থনা করো
কবি যেন আসে ফিরে।

কাউসার ভিলা,সিলেট।