গেমিংপ্রেমীদের জন্য বাজারে আসছে সেরা স্মার্টফোন ইনফিনিক্স ‘হট ১২’সিরিজ

গেমিংপ্রেমীদের জন্য বাজারে আসছে সেরা স্মার্টফোন ইনফিনিক্স ‘হট ১২’সিরিজ। প্রিমিয়াম মোবাইল কোম্পানি ‘ইনফিনিক্স’ ব্র্যান্ডটির স্মার্টফোন পোর্টফোলিওতে নতুন হ্যান্ডসেট ‘হট ১২’সিরিজ যোগ করতে যাচ্ছে। এই ফোনের আন্তর্জাতিক বাজারে আসাকে ঘিরে ইতোমধ্যে গ্রাহকদের মধ্যে তুমুল আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে এবং দেশের ক্রমবর্ধমান স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরাও একই উন্মাদনায় মেতেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, কাঙিক্ষত এই ডিভাইসে থাকবে ইন-বিল্ট হেলিও জি৮৫ প্রসেসর এবং প্রফেশনাল গেমারদের জন্য ৬.৮২” ইঞ্চির ৯০হার্টজ প্রো-লেভেল গেমিং স্ক্রিন সহ বৃহৎ স্টোরেজ সুবিধা।

বিভিন্ন সূত্র জানাচ্ছে, ‘দ্য হট ১২’ এ থাকতে পারে ১২৮জিবি+৬জিবি’র মেমোরি এবং র্যাম ফিচার। ফলে ব্যবহারকারীরা সহজে ও নির্বিঘ্নে একইসঙ্গে অনেকগুলো অ্যাপ ব্যবহার করার পাশাপাশি স্টোরেজে তাদের সব রকমের ডেটা সংরক্ষণ করতে পারবেন। এছাড়া, ইনফিনিক্সের নিজস্ব প্রযুক্তিতে উদ্ভাবিত ‘র্যাম ফিউশন টেকনোলজি’ ‘হট ১২’ ফোনকে বর্ধিত ৫জিবি র্যাম এবং সর্বোচ্চ ১১জিবি সমন্বিত র্যাম ব্যবহারের সুযোগ করে দেবে; এতে ব্যাকগ্রাউন্ড ‘ক্যাশড অ্যাপ্লিকেশন’ সক্ষমতার সংখ্যা তিন থেকে নয়টি পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে এবং শীর্ষ ২০টি অ্যাপের ‘অ্যাভারেজ লঞ্চ টাইম’-এর উন্নতি ঘটবে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ। গুঞ্জন রয়েছে, গেমিং এর জন্য বিশেষভাবে তৈরি এই স্মার্টফোনে রাতভর ভারী ও দ্রুতগতির গেম খেলতে পারবেন গেমিংভক্তরা।

এছাড়া, ডিভাইসের ‘ফুল ৬.৮২” ইঞ্চি, ৯০হার্টজ’ প্রো-লেভেল ই-স্পোর্টস স্ক্রিনের ‘সিল্কি-স্মুথ’ টাচ ফিচার গেমিং এ বাড়তি মাত্রা এনে দিতে পারে। আরো বলা হচ্ছে, ইনফিনিক্সের পূর্বের ফোনগুলোর চেয়ে এই ডিভাইসে ক্যামেরার ডিজাইনেও থাকতে পারে নতুনত্ব। সর্বাধুনিক প্রযুক্তির, হাই-কনফিগারেশন ও নান্দনিক ডিজাইনের ‘হট ১২’ বাজারে আসতে পারে- ‘রেসিং ব্ল্যাক’, ‘লিজেন্ড হোয়াইট’ এবং ‘অরিজিন ব্লু’ এর মতো উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত রঙে। জল্পনা-কল্পনা রয়েছে, ইনফিনিক্স তাদের এই সিগনেচার স্মার্টফোনে নিয়ে আসছে ব্যতিক্রমী ও নতুন সব ফিচার। বহুল প্রত্যাশিত এই স্মার্টফোনটি কবে, কোথায় ও কত মূল্যে পাবেন ইনফিনিক্সভক্তরা তা জানা যাবে শিগগিরই।

ইনফিনিক্স সম্পর্কে:
বিশ্বব্যাপী মোবাইলের ডিজাইন, তৈরি এবং বাজারজাতকরণে দ্রুত বর্ধনশীল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স মোবাইল ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। নিজেদের ব্র্যান্ডের ডিভাইসগুলো ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছে দিতে বড়সড় পোর্টফোলিও নিয়ে কাজ করছে ইনফিনিক্স। জেড প্রজন্মকে লক্ষ্য করে ইনফিনিক্স নিপুণভাবে ডিজাইন করা স্মার্টফোনের নান্দনিক স্টাইল, ক্ষমতা এবং পারফরমেন্সসহ কাটিং-এইজ প্রযুক্তি উন্নয়নে কাজ করছে। ডিভাইসগুলোকে ট্রেন্ডি লুক দেয়া এবং প্রান্তিক ব্যবহারকারী কাছে সহজলভ্য করার ক্ষেত্রে একধাপ এগিয়ে আছে তারা। ‘ফিউচার ইজ নাউ’কে ধারণ করে, ইনফিনিক্স তরুণ গ্রাহকদের এমন সব সুবিধা হাতের নাগালে এনে দিতে চায় যাতে বাজারে থাকা প্রতিযোগীদের ভিড়ে বিশ্বকে তাদের সক্ষমতার কথা জানান দিতে পারে। ইনফিনিক্সের পোর্টফোলিতে থাকা পণ্যগুলো আফ্রিকা, লাতিন আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়াসহ বিশ্বের ৪০টিরও বেশি দেশে পৌঁছে গেছে। ইনফিনিক্সের বর্তমান বাজার অভাবনীয় দ্রুত গতিতে বাড়ছে। ২০১৮-২০২০ সালে ১৬০% শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। আকর্ষণীয় ডিজাইন ও শক্তিশালী ফিচারসহ ফ্ল্যাগশিপ-পর্যায়ের ডিভাইস তৈরি অব্যাহত রাখতে আগামী দিনগুলোতে বিশাল পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

Facebook Comments