নেত্রকোনা-৪ উপ-নির্বাচন : কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি?

0
278

সাংসদ রেবেকা মমিনের মৃত্যুতে খালি হওয়া নেত্রকোনা-৪ উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২ সেপ্টম্বর।  জাতীয় নির্বাচনের আগে এই আসনের সম্ভাব্য নির্বাচিত সংসদ সদস্য ৪ মাসও কাজের সুযোগ না পেলেও নির্বাচনকে সবাই গুরুত্ব সহকারেই নিয়েছেন। কেননা এই উপনির্বচানেই নিজের জনপ্রিয়তার একটা বার্তা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগকে দিতে চান সম্ভাব্য নৌকার মাঝিরা। খালিয়াজুড়ি, মোহনগঞ্জ এবং মদন উপজেলা নিয়ে নেত্রকোনা-৪ আসন। এ আসনে উপ-নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেয়ার তারিখ ছিল ১৮ জুলাই সকাল ১০ টা থেকে ১৯ জুলাই বিকাল ৫ টা পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী।

মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য সাজ্জাদুল হাসান, আ.লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক উপ- কমিটির সাবেক সদস্য মমতাজ হোসেন চৌধুরী, মোহনগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহীদ ইকবাল, মদন উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি মো: হাবীবুর রহমান, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক শফী আহমেদ, সংস্কৃতি  বিষয়ক উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক গোলাম বাকী চৌধুরী, শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক উপ-কমিটির সাবেক সদস্য এম মঞ্জুরুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আলী আতহার খান এবং ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সাবেক সদস্য রোমান মিয়া।

আসন্ন এই নির্বচান ঘিরে নির্বাচনী ভাবনা ও দলীয় মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে কতটুুকু আশাবাদী এমন প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক শফী আহমেদ বলেন,‘ আমি দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূলের সাথে রাজনীতি করে আসছি। ২০০৬ সালে কেয়ারটেকার গভর্নমেন্টের আমলে দলের মনোনয়নও পেয়েছিলাম কিন্তু এরপর ১/১১ রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের পর অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়ে যায়। এখানে দলীয় মনোনয় পান রেবেকা মোমেন চাচী। উনি যতদিন ছিলেন আসলে এখানে নৌকার বিকল্প কোন মাঝি খোঁজার দরকার মনে করেনি আওয়ামী লীগ। আল্লাহর ইচ্ছাতে উনি যেহেতু আমাদের মাঝে আর নাই তাই আওয়ামী লীগকে বাধ্য হয়েই বিকল্প খোঁজতে হচ্ছে আর সেই বিকল্প হবার দৌঁড়ে তৃণমূলের নেতা কর্মীরাই বলে দিবে কে এগিয়ে। তবে এতটুকু বলতে পারি আমি দলীয় মনোনয়ন পেলে যে পরিমান ভোট কাস্ট হবে তা আর কারও বেলাতেই হবে না। কাজেই আমি আশাবাদী’ ।

আসন্ন উপনির্বাচন নিয়ে তৃণমুলে জনপ্রিয় তরুণ প্রার্থী গোলাম বাকী চৌধুরীর কাছে বিডিনিউজ ট্র্যাকার জানতে চায় তার নির্বাচনী ভাবনা ও দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে কতটা আশাবাদী। জবাবে গোলাম বাকী চৌধুরী বলেন- “আমি খুবই আশাবাদী। আমি দীর্ঘদিন যাবৎ এই আসনে প্রচার,প্রচারণা ও মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। কাজ করতে গিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্য আমাকে নিয়ে যে উচ্ছ্বাস, উদ্দীপনা ও তাদের যে আকাঙ্খা দেখেছি যদি নেত্রী আমাকে মূল্যায়ন করে আমি সর্বকালের সবচেয়ে বেশি ভোটে বিজয়ী হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে নৌকা উপহার দিতে পারবো বলে বিশ্বাস করি। মাত্র ৪ মাস কাজের সুযোগ থাকবে এত স্বল্প সময়ে এলাকার জন্য কতটুুকু করতে পারবেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন- “এই স্বল্প সময়ে দীর্ঘ মেয়াদি কাজ করা কঠিন হবে তবে স্বল্প পরিসরে প্রয়োজনীয় কাজ করে আমি জনগণের আস্থা ও নির্ভরতার জায়গা টা ধরে রাখতে পারবো ইনশাল্লাহ কারণ আপনারা জানেন যে কিছুদিন পরই জাতীয় সংসদ নির্বাচন।

উল্লেখ্য গত ১১ জুলাই নেত্রকোনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) বেগম রেবেকা মমিনের মৃত্যু হয়। পরের দিন ১২ জুলাই শনিবার আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব এম আব্দুস সালামের সই করা এ সংক্রান্ত গেজেটে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য বেগম রেবেকা মমিন গত ১১ জুলাই মৃত্যুবরণ করায় একাদশ জাতীয় সংসদের ১৬০ নেত্রকোনা-৪ আসনটি ওই তারিখে শূন্য হয়েছে।

আপনার মন্তব্য