প্রথম দল হিসেবে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

প্রথম দল হিসেবে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা
প্রথম দল হিসেবে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা

প্রথম দল হিসেবে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা। আলেসান্দ্রো গোমেজের একমাত্র গোলে ১-০ ব্যবধানে প্যারাগুয়েকে হারিয়ে কোপা আমেরিকার শেষ আট নিশ্চিত করেছে ১৪ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। যদিও প্রত্যাশামত এখনও পারফর্ম করতে পারেনি তাতে কি চূড়ান্ত লক্ষ্যের দিকেই এগোচ্ছে দলটি। সহজ ভাবে চিন্তা করলে আর মাত্র ৩ টি ম্যাচ জিততে পারলেই অভিষ্ট লক্ষে পৌঁছাবে মেসির আর্জেন্টিনা। সেখানে বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে চির প্রতিদ্বন্দী ব্রাজিলই।

এদিন অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, সার্জিও আগুয়েরোসহ একাধিক পরিবর্তন এনে শুরুর একাদশ মাঠে নামায় আর্জেন্টিনা। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে শক্তিশালী একাদশ নিয়ে শুরু থেকেই প্রভাব বিস্তার করে খেলতে শুরু করে আলবিসিলেস্তারা। ফলও পেয়ে যায় দ্রুত। ম্যাচের ১০ মিনিটেই এগিয়ে যায় তারা।

এ সময় ডানদিকে বল পেয়ে যান ডি মারিয়া। তিনি বক্সের মধ্যে থাকা গোমেজকে বল দেন। তখন গোমেজের সামনে ছিলেন কেবল প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক অ্যান্তোনি সিলভা। তাকে আসতে দেখে ঠাণ্ডা মাথায় ট্যাব করে তার শরীরের ওপর দিয়ে বল জালে পাঠান তিনি।

এই গোলের কিছুক্ষণ পরই ডি বক্সের সামনে ফ্রি কিক পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। লিওনেল মেসির নেওয়া কিক অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে আরও একবার বল জালে জড়িয়েছিল। সেটি নিজেই নিজেদের জালে জড়িয়েছিলেন প্যারাগুয়ের জুনিয়র আলোনসো। কিন্তু লিওনেল মেসি অফসাইড হওয়ার কারণে বাতিল হয় গোলটি। তাতে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় মেসি-গোমেজরা।

বিরতির পর অবশ্য ভিন্নরূপে হাজির হয় প্যারাগুয়ে। এই অর্ধে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে প্রভাব বিস্তার করে খেলে তারা। একের পর এক আক্রমণ শানায়। কিন্তু তাদের কোনো আক্রমণই আর্জেন্টিনার রক্ষণব্যুহ ভেঙে জালের নাগাল পায়নি। তাতে ১-০ ব্যবধানের দারুণ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে মেসি-ডি মারিয়ারা।

কোপা আমেরিকার ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিলির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিল আর্জেন্টিনা। পরের ম্যাচে উরুগুয়ের বিপক্ষে জয় পায় ১-০ গোলে। আজ প্যারাগুয়েকে হারিয়ে ৩ ম্যাচ থেকে ৭ পয়েন্ট সংগ্রহ করে এক ম্যাচ হারে রেখেই কোয়ার্টার ফাইনালে নাম লেখালো আর্জেন্টিনা।

৩ ম্যাচ থেকে ৫ পয়েন্ট নিয়ে চিলি আছে দ্বিতীয় স্থানে। আর ৩ পয়েন্ট নিয়ে প্যারাগুয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। ১ পয়েন্ট নিয়ে উরুগুয়ের অবস্থান চারে।

এই ম্যাচে লিওনেল মেসি গোল না পেলেও একটি রেকর্ড গড়েছেন। আজ জাতীয় দলের হয়ে রেকর্ড ১৪৭তম ম্যাচ খেলেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে জাভিয়ের মাসচেরানোর সঙ্গে যৌথভাবে আর্জেন্টিনার ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ডে ভাগ বসান বার্সা তারকা।

Facebook Comments