ফিলিস্তিনের সমর্থনে আরব দেশগুলোর চেয়েও নিবেদিত বাংলাদেশ

জাহিদুল ইসলাম

শুধু আরব দেশ কেন ফিলিস্তিন ইস্যুতে বিশ্বের যে কোন দেশের চাইতে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। এর পেছনে রয়েছে দুটো কারণ। বিগত বছরগুলোতে যখন একের পর এক আরব রাষ্ট্রগুলো ইসরাইলকে স্বীকৃত দেয়ার সিদ্ধান্তের পথে হাঁটতে থাকে তখন অনেকেই জেনে অবাক হবেন যে বাংলাদেশ সরকার তার জন্মের শুরু থেকে ফিলিস্তিনের প্রতি কতটা নিবেদিত ছিলো। যেখানে সৌদিআরবের মত দেশ ইসরায়েলের সমর্থনে থাকে সেখানে বাংলাদেশ সেই ১৯৭২ সালেই ইসরায়েলের স্বীকৃতি প্রত্যাক্ষান করেছিলো।

বাংলাদেশের এই অবস্থানে যে অদূর ভবিষ্যতেও কোন পরিবর্তন আসবে, তেমন সম্ভাবনা একেবারেই দেখছেন না বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, এর কারণ যতটা না আন্তর্জাতিক, তার চেয়ে অনেক বেশি বাংলাদেশের জনমত এবং আভ্যন্তরীণ রাজনীতি।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর শুরুর দিকে যে কয়েকটি দেশ বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ার প্রস্তাব করেছিল, তারমধ্যে ছিল ইসরায়েল।

১৯৭২ সালের ৪ঠা ফেব্রুয়ারি ইসরায়েল বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ার প্রস্তাব করেছিল।

তখন স্বাধীন বাংলাদেশের শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন সরকার লিখিতভাবে ইসরায়েলের স্বীকৃতি প্রত্যাখ্যান করেছিল।

সেই অবস্থানের পিছনে মূল বিষয় ছিল ফিলিস্তিনিদের স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের সমর্থন।

৫০ বছর পরেও ইসরায়েল প্রশ্নে বাংলাদেশের সেই অবস্থানে কোন পরিবর্তন আসেনি। বাংলাদেশ বিশ্বের সেই বিরলতম দেশ যেখানো পাসপোর্টে ইসরায়েলকে প্রকাশ্যে নিষেধাজ্ঞার মত সাহস দেখিয়েছে। যেখানে লেখা This passport is valid for all countries of the world except israel!

Facebook Comments