ব্রাজিলের ‘বিতর্কিত’ গোলে রেফারিকে দুষছে কলম্বিয়া

কলম্বিয়ার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ২-১ ব্যবধানের জয় ঠিকই তুলে নিয়েছে ব্রাজিল। তবে কোচ তিতের দলের প্রথম গোলটা নিয়ে আছে বেশ বিতর্ক। ম্যাচ শেষে কলম্বিয়া কোচও রেফারিকে একহাত নিলেন সেই বিতর্কিত সিদ্ধান্তের জন্য।

২০১৮ বিশ্বকাপ ফাইনালের রেফারি নেস্তর পিতানা এদিন দায়িত্বে ছিলেন ব্রাজিল-কলম্বিয়া ম্যাচের। তিনিই কিনা করে ফেললেন মারাত্মক এক ভুল। ম্যাচের ৭৮ মিনিটে রেনান লোডির দারুণ এক ক্রসে ফিরমিনোর বুদ্ধিদীপ্ত ফিনিশে সমতা ফেরায় ব্রাজিল। তবে তার বিল্ড আপে নেইমারের থ্রু বলটা লেগে গিয়েছিল রেফারি পিতানার গায়ে, তখন খেলা থামানোর সিদ্ধান্ত দেননি রেফারি, এরপরই এসেছে গোলটা।

ফিফা তো বটেই, কনমেবলের নিয়ম মোতাবেক এমন পরিস্থিতিতে খেলা বন্ধ করে পুনরায় চালু করার নির্দেশনা আছে। কিন্তু সে পথে হাঁটেনইনি ব্রাজিল-কলম্বিয়া ম্যাচের আর্জেন্টাইন রেফারি। 

তখন তার গায়ে বল লাগার পর কলম্বিয়া খেলোয়াড়রা থমকে দাঁড়িয়েছিলেন, খেলা বন্ধ করার আবেদন করছিলেন, তখনই এসেছে গোলটা। এজন্যেই কলম্বিয়া কোচ রেইনাল্ডো রুয়েদার যত ক্ষোভ। তিনি বলেন, ‘ব্রাজিলের দুটো গোল দুটো ভিন্ন পরিস্থিতিতে এসেছে। আমার মনে হয় রেফারির সে পরিস্থিতিটার কারণে খেলোয়াড়দের মনোযোগ কিছুটা সরে গিয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতেই এসেছে প্রথম গোলটা।’

ব্রাজিলকেও এই জয়ের কৃতিত্বটা দিলেন রুয়েদা। বলেন, ‘ব্রাজিলকে নিজেদের জয়টা কষ্ট করে অর্জন করে নিতে হয়েছে। বল দারুণভাবে ছড়িয়ে দিচ্ছিল তারা, বদলি হিসেবে যারা এসেছিল, তারাও দারুণ প্রভাব ফেলেছিল ফলাফলে। এ কারণেই সম্ভবত দ্বিতীয়ার্ধটা ভিন্ন ছিল।’

জয় কিংবা নিদেনপক্ষে ড্রটাও পায়নি তার দল। তাই আফসোসও কিছুটা ঝরে পড়ল তার কণ্ঠে, ‘কিন্তু আমরাও বেশ ধারাল ছিলাম। দিনশেষে, এটা একটা আফসোস যে আমরা ফলাফলটা পাইনি।’